টিকটক অ্যাপ নিষিদ্ধ করা এখনই উপযুক্ত সময়

সাখাওয়াত হোসেন সাখাওয়াত হোসেন

(কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি)

প্রকাশিত: ৩:১৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৯, ২০২১

ইন্টারনেট দুনিয়ায় বিভিন্ন ধরণে অনেক অ্যাপ ব্যবহার করা হয়। এই হরেক রকমের অ্যাপগুলোর মধ্যে আমাদের দেশের তরুণদের মাঝে অন্যতম জনপ্রিয় একটি অ্যাপ হচ্ছে টিকটক। এই অ্যাপের মাধ্যমে স্বল্প দৈর্ঘ্যের ভিডিও শেয়ার করা যায়।

আর এই অ্যাপটি ব্যবহার করে আমাদের দেশের তরুণ ছেলে মেয়েরা বিভিন্ন ধরণের নাটক,গান বা কোন বক্তব্যের অংশ বিশেষ কেটে বা অস্বাভাবিক অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে ভিডিও তৈরি করে প্রতিদিনই আপলোড করে থাকে।এমনকি যৌন ও সহিংসতার মতো ভয়ঙ্কর ভিডিও চিত্র আপলোড দিতেও কোনো প্রকার দ্বিধাবোধ করে না।
মূলত তারকাখ্যাতি পাওয়ার জন্যই প্রতিদিন এই সকল ভিডিও আপলোড করা হয়ে থাকে। ফলশ্রুতিতে আমাদের দেশের কিশোর-কিশোরী যাচ্ছে অপরাধের এক অন্ধকার জগতে। কিছু দিন আগে ঘটে যাওয়া একটি  ঘটনা সবার জানা গাজীপুরের টঙ্গী এলাকায় টিকটকদের দ্বারা এক কিশোরীকে গণধর্ষণ করা হয়। অসভ্য এবং আদর্শ বিবর্জিত এক প্রজন্ম নির্মাণে সহায়তা করছে এই অ্যাপটি। তাই ভারত ও যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি শক্তিশালী দেশ টিকটক অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে।
অপরাধ বিশ্লেষক ও প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের শঙ্কা অ্যাপকেন্দ্রিক নৈতিক অবক্ষয়ের পরিণতি হতে পারে ভয়াবহ। অপরাধ বিশ্লেষক ও প্রযুুুক্তি বিশেষজ্ঞ সালাউদ্দিন সেলিম বলেন,লাইকি ও টিকটক অ্যাপ হচ্ছে যৌনতার যোগসূত্র। এর মাধ্যমে একে অন্যের সাথে পরিচিত হয়ে নোংরামি হয়।
অপরাধ ও সমাজ বিজ্ঞানী তৌহিদুল ইসলাম হক বলেন এই ধরণের সংস্কৃতির সাথে শিশুরা যদি অভ্যস্থ হয়, তাহলে ভবিষ্যত খুবই অন্ধকার।
অশ্লীল ও বিদ্রুপাতক ভিডিও তৈরির যে অসুস্থ প্রতিযোগিতা চলছে এটা এখনই থামিয়ে দিতে হবে নতুবা তরুণ প্রজন্ম ধীরে ধীরে ধ্বংসের দিকে অগ্রসর হবে। তাই আগামী তরণ প্রজন্মকে বাঁচাতে এই অ্যাপটি বাংলাদেশে নিষিদ্ধ করে দেওয়া কর্তৃপক্ষের এখনই উপযুক্ত সময়।