কেন্দুয়ায় বয়স জালিয়াতির অভিযোগে ৭০০ বয়স্ক ভাতা বাতিল

প্রকাশিত: ৯:৫০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২১

কেন্দুয়া প্রতিনিধিঃ নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় নির্বাচন কমিশনের সাথে সমাজসেবা কার্যালয়ের জয়েন্ট সফটওয়্যার মাধ্যমে সুবিধাভোগী ব্যক্তিদের জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই বাছাই করার ফলে বয়স জালিয়াতির অভিযোগে বয়স্ক ভাতার তালিকাভূক্ত থেকে ৭ শত সুবিধা ভোগীদের ভাতা বাতিল করেছে সমাজসেবা অধিদপ্তর।

এদিকে কেন্দুয়া উপজেলা শতভাগ ভাতাভোগীর আওতার আসায় বয়স্ক ও বিধবা ভাতার আওতায় ১৩টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা মিলে নতুন আবেদন জমা পড়েছে ১৫ হাজার ২শতকের উপরে। নতুন এ আবেদন চলতি মাসের ১০তারিখ পর্যন্ত ভাতাভোগীদের জন্য অব্যাহত আছে।

এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) কেন্দুয়া উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা ইউনুস রহমান এর সাথে কথা হলে তিনি বলেন , ১৯৯৭-৯৮ অর্থ বছর থেকে শুরু করে ২০২০-২১ অর্থ বছর পর্যন্ত ১টি পৌরসভা ও ১৩ টি ইউনিয়নে মোট বয়স্ক ভাতাভোগী ছিল ১০ হাজার ২৪৩ জন।

তাদের মধ্যে থেকে যাচাই বাছাই করে ৭শত জন বয়স্ক ভাতাভোগীর বয়স সরকার নির্ধারিত বয়সের চেয়ে কম পাওয়ায় বাতিল করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এনআইডি কার্ড চালু হওয়ার পূর্ব থেকেই ভাতাভোগীদের এ অনিয়মটা চলে আসছিল। তাই তাদের বাতিল করে এবং নতুনদের নাম তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের এই কর্মকর্তা আরো বলেন, ইতোমধ্যে যাদের নাম ভাতার তালিকা থেকে বাতিল করা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে সরকারি নির্দেশনা না থাকায় অর্থ ফেরত বা আইনগত ব্যবস্থা নেয়া যায়নি।

তিনি আরো বলেন, কোন ব্যক্তি যদি মনে করেন শারীরিক গঠন অনুযায়ী পুরুষ বয়স ৬৫ এবং মহিলা ৬২ বছরের উপরে হয়েছে। তিনি প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র নিয়ে নির্বাচন কমিশনের যোগাযোগের মাধ্যমে তাদের বয়স সঠিক করে আবেদন জমা দেন, তাহলে তাকেও ভাতায় আওতায় আনা হবে ।