মদনে স্ত্রীর রক্তাক্ত লাশ ও স্বামীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত: ৫:০৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১২, ২০২১

নেত্রকোনার মদনে নিজ ঘর থেকে স্ত্রী মেরাজু (৪৬) রক্তাক্ত লাশ ও স্বামী নান্দুমীরের ফাঁসিতে ঝুলানো অবস্থায় লাশ উদ্ধার করে মদন থানা পুলিশ ও ময়মনসিংহের ক্রাইমসিন সি আইডি বিভাগ।

আজ মঙ্গলবার উপজেলার ৬ নং তিয়শ্রী ইউনিয়নের বালালী গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

স্বামী-স্ত্রী দুজনের লাশ ময়না তদন্তের জন্য নেত্রকোনা মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মৃত নান্দুমির ১১বছর ধরে এই গ্রামে বসতবাড়ি করে আছে । নান্দুমির (৫৫) ৭নং নায়েকপুর ইউনিয়নের আলমশ্রী গ্রামের মৃত সামছু মিয়ার ছেলে।

সকাল আনুমানিক সময় ৬ ঘটিকা নান্দুমির এর বাড়িতে ছাগল বিশেষ কোন কাজের জন্য ছাগল নিয়ে আসে একই গ্রামের সুনই মিয়া (৪৫)। পরে ডাকাডাকি করে কোনো সাড়া শব্দ না পাওয়ায় দরজায় ধাক্কা দিলে, দরজা খুলে যায়, এমন সময় দেখতে পান নান্দুমির ফাঁসিতে ঝুলে আছে ও তার স্ত্রী রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে আছে। তার ডাক চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এসে দেখে থানা পুলিশকে খবর দেন ।

মা-বাবার মৃত্যুর ঘটনা রেখে যাওয়া সন্তান অপূর্ব (৮) ও লাবনী আক্তার (৬) বলেন, রাতের খাবারের শেষে মা-বাবা মাটিতে শুয়ে যায় আমরা দুই ভাই বোন খাটে শুয়ে ঘুমিয়ে যাই। সকালে লোকজনের চিৎকার শুনে ঘুম থেকে উঠে দেখি মা-বাবা দুজনেই মরা লাশ।

এবিষয়ে জানতে চাইলে তিয়শ্রী ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান ফখরুদ্দিন আহমেদ বলেন, লোকে মুখে শুনে ঘটনাটি দেখতে এলাম ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক ঘটনা ঘটেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মদন থানা অফিসার ইনচার্জ ফেরদৌস আলম বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে, এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে, এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনির হোসেন বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে থানা পুলিশ টিম এসেছে, অন্যান্য তদন্তকারী সংস্থা পিবিআই ও সিআইডিকে জানানো হয়েছে, তদন্ত অব্যাহত রয়েছে।  দ্রুত গতিতে ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটিত হবে।